Home >> পড়ালেখা >> মানব দেহের ১০০ টি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

মানব দেহের ১০০ টি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

মানবদেহ আসলেই অফুরন্ত বিস্ময়ের সম্ভার। এমন হাজারো ব্যাপার আছে আমাদের এই শরীরে যা আমরা নিজেরাও জানিনা। অথচ এটা আমাদেরই একটি অংশ।
একজন স্বাভাবিক স্বাস্থ্যবান মানুষ ২৪ ঘন্টায় যা করে:
————————————————–
(ক) ২৩,০৪০ বার শ্বাস প্রশ্বাস নেয়
(খ) ৭,৫০০ লিটার রক্ত পাম্প করে
(গ) প্রতিরাতে গড়ে ১-১.৫ মিনিট স্বপ্ন দেখে
(ঘ) হৃৎপিণ্ড ১,৩০,৬৮০ বার স্পন্দিত হয়
(ঙ) গড়ে প্রায় ৪,৮০০ টি কথা বলে
(চ) ১ সের ২ ছটাক পানি পান করে
(ছ) মাথার মগজের ৭০ লক্ষ কোষ কোন না কোন কাজ করে
(জ) মাথার চুল ০.০১৭১৪ ইঞ্চি বাড়ে
(ঝ) সকালের তুলনায় সন্ধ্যায় উচ্চতা ১ সে.মি. হ্রাস পায়

মানব দেহে প্রতি মিনিটে মিনিটে কী ঘটে চলেছেঃ
———————————————-
✬ একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের সুস্থ, স্বাভাবিক, বিশ্রামরত অবস্থায় গড়ে মিনিটে ৭২ বার হৃদস্পন্দন হয়।
✬ একজন বয়স্ক লোক প্রতি মিনিটে ১২-১৮ বার শ্বাস-প্রশ্বাস গ্রহণ করে। শ্বাস-প্রশ্বাস ৩ মিনিট ২০ সেকেন্ড বন্ধ থাকলে মানুষ মারা যেতে পারে।
✬ মানবদেহের অতি বিস্ময় পাকস্থলী। এখানে প্রতি মিনিটে তৈরি হচ্ছে ৫ হাজার কোটি কোষ। তারা আবরণ সৃষ্টি করে পাকস্থলীকে দিচ্ছে।
✬ দেহে রয়েছে দুটি কিডনি। কিডনি দুটি প্রতি মিনিটে ১.৩ লিটার রক্ত ছাঁকছে এবং প্রস্রাব আকারে বের করে দিচ্ছে।
✬ মানবদেহে রক্ত সঞ্চালন ৫ মিনিট বন্ধ থাকলে মানুষের মৃত্যু ঘটে।
✬ মানবদেহে প্রতিদিন ৫ লিটার পানির প্রয়োজন। দেহ প্রতিদিন ২.৩ লিটার পানি ত্যাগ করে।

✬ মানুষের শরীরের প্রতি ঘন্টায় গড়ে ৯০০ কোটির মতো লোহিত রক্ত কোষের জন্ম হয়।
✬ মস্তিষ্কের প্রতি ঘন মিলিমিটার Tissue বা কলার মধ্যে ৫০০০-এর মতো নার্ভ কোষ থাকে।
✬ সবচেয়ে দ্রুত নার্ভ সেকেন্ডে ১২০ মিটারের বেশি গতিবেগে সংবাদ প্রেরণ করতে পারে।
✬ খালি চোখে মানুষ ২২ লক্ষ আলোক-বর্ষ দূরত্ব অবধি দেখতে পায়, অর্থাৎ ২.১ x ১০১৭ কিলোমিটার দূরের বস্তু। এই দূরত্ব অ্যালড্রোমিডা ছায়াপথের, যা আমাদের ছায়াপথের মতো কুণ্ডলিত, যদিও আয়তনে তার প্রায় দ্বিগুণ।
✬ মানুষের খালি চোখে ৮০ কিলোমিটার দূরে জ্বালানো দেশলাই কাঠির আগুনের শিখা সনাক্ত করতে পারে।
✬ প্রায় চল্লিশ মিনিট নিচ্ছিদ্র অন্ধকারে থাকার পর মানুষের চোখ আলোর প্রতি ২৫০০০ গুণ বেশি প্রতিক্রিয়াশীল হয়ে ওঠে।
✬ কোনও কিছুর সাহায্য ছাড়াই মানুষের চোখ প্রায় এক কোটি বিভিন্ন রঙের স্তর সনাক্ত করতে পারে।

✬ মানুষের গলা বা কন্ঠনালীর ব্যাপারে এই সত্যটা হজম করা শক্ত যে আমাদের সারাজীবনে আমরা প্রায় ৪০ টন খাবার খাই এবং চার লক্ষ কুড়ি হাজার ঘন মিটারের মতো বাতাস নিঃস্বাস-প্রশ্বাসে ব্যবহার করি।

✬ মানুষের শরীরের খুদ্রতম কোষগুলি থাকে cerebellum বা লঘুমস্তিষ্কে এবং তাদের আয়তন ০.০০৫ মিলিমিটারের মতো। Ovum বা ডিম্বকোষ কোষেদের মধ্যে সবচেয়ে বড়, যার অবস্থান Ovary অর্থাৎ ডিম্বাশয় বা অন্ডকোষে। তার আয়তন এই মাপের ‘য়’এর ফুটকির মতো।

✬ মানুষের শরীরে হাড়ের সংখ্যা মোট ২০৬।
✬ সবচেয়ে ছোট Stirrup – কানের হাড়, যা দৈর্ঘে ২.৬ থেকে ৩.৪ মিলিমিটারের মতো।
✬ ঊর্বাস্থি বা ঊরুর হাড় (Femur) সবচেয়ে লম্বা, ৫০ সেন্টিমিটারের মতো দীর্ঘ হতে পারে।
✬ মানুষের শরীরের মধ্যে প্রায় ২০০ টির মতো বিভিন্ন Joint বা সন্ধি আছে।
✬ একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের শরীরের মোট ত্বকের আয়তন ২০ বর্গফুট এবং ওজন ৩ কেজির মতো।

✬ মানুষের শরীরের ধমনী ও শিরার মতো রক্তবাহ (blood vessel) আছে এক লক্ষ কিলোমিটারের মতো।
✬ একজন গড়পড়তা মানুষের সারা জীবনে হৃৎপিন্ড ২০ কোটি লিটার রক্ত পাম্প করে এবং ২৫ কোটি বার স্পন্দিত হয়।

✬ মানুষের পৌষ্টিক নালী বা অন্ত্র (Alimentary canal) প্রায় ৯ মিটার দীর্ঘ।
✬ একজন গড়পড়তা মানুষের শরীর থেকে দিনে ১৪ বারের মতো মোট ৫০০ মিলিলিটার গ্যাস নির্গত হয়।
✬ যারা বিন, বরবটি, মটরশুঁটি ইত্যাদি প্রচুর পরিমানে খায় তাদের শরীরে ঘন্টায় প্রায় ১৭০ মিলিমিটারের মতো গ্যাস তৈরি হয়।

✬ মানুষের শরীরের Liver বা যকৃতের মধ্যে প্রায় ৫০০ রকমের রাসায়নিক প্রক্রিয়া ঘটে।
✬ Kidney বা বৃক্কের মধ্যে দিয়ে সারাদিনে ২০০০ লিটারের মতো রক্ত প্রবাহিত ও পরিশ্রুত হয়।

✬ আমাদের আঙুলগুলো এমনই সংবেদনশীল যে ০.০২ মাইক্রোমিটার (এক মিটারের দশ লক্ষ ভাগের এক ভাগ) কম্পন বা স্পন্দন অনুভব করতে পারে।
✬ আমাদের আঙুলের নখ সাধারণত সপ্তাহে আধ মিলিমিটার বাড়ে এবং মাথার চুল সপ্তাহে বাড়ে ৩ মিলিমিটারের মতো।

✬ আমাদের শরীরের হাড্ডি Granite এর মতই শক্তিশালী। একটা ম্যাচ বক্স সাইজের হাড্ডির ব্লক ৯ টন পর্যন্ত ওজন ধারন করতে সক্ষম! চিন্তা করে দেখুন – এটি কংক্রিটের চাইতেও চারগুন বেশী শক্তিশালী!
✬ আমাদের নখ শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে ৬ মাস সময় নেয়!
✬ আমাদের মানবদেহের সবচেয়ে বড় অংশ হলো আমাদের চামড়া। একজন পুনর্ বয়স্ক পুরুষের শরীরে ২০ স্কয়ার ফিটের মত চামড়া থাকে। আর চামড়া প্রতিনিয়ত বদলাতে থাকে। একজন মানুষ তার জীবনকালে ১৮ কেজির কাছাকাছি চামড়া ছাড়ে অর্থাত পড়ে যায়।
✬ আপনি যখন ঘুমান, প্রতিবার ঘুমানোর সময় আপনি ৮ মিলিমিটার লম্বা হন। কিন্তু ঠিক তার পরের দিন আপনি আবার সেই আগের উচ্চতায় পৌছে যান। এটির কারন হলো আপনার কার্টিলাজের ডিস্কগুলো গ্রাভিটির কারনে সঙ্কুচিত হয়ে যায় যখন আপনি বসে বা দাড়িয়ে থাকেন।
✬ প্রতিটি কিডনী ১০ লাখেরও বেশী ফিল্টার ধারন করে যা প্রতি মিনিটে ১। লিটার পর্যন্ত রক্ত ফিল্টার বা পরিশোধন করে এবং দিনে ১।৫ লিটার পর্যন্ত ইউরিন শরীর থেকে ছেকে বের করে দেয়।
✬ আমাদের চোখে ফোকাস করার জন্য যে মাংসপেশী আছে তা দিনে ১ লক্ষ বারের মত নড়াচাড়া করে। আপনার চোখের মত এরকম একটা ওয়ার্কআউট যদি আপনি করতে চান, তাহলে আপনাকে ৮০ কিমি হাটতে হবে।
✬ ৩০ মিনিটে আমাদের শরীর থেকে যে পরিমান তাপ নির্গত হয়, তা দিয়ে আধা গ্যালন পানি অনায়াসেই ফুটানো সম্ভব।
✬ আমাদের মগজের ৯০% পর্যন্ত তথ্য আমাদের চোখ সরবরাহ করে।

গুরুত্বপূর্ণ সব তথ্য:
—————
✬ মানব শরীরে ৭০% পানি ও ১৮% কার্বন রয়েছে
✬ একজন মানুষের হৃৎপিন্ড তার মুষ্টিবদ্ধ হাতের সমান
✬ হৃৎপিন্ড যেমনটা ভাবা হয় বুকের বামদিকে আসলে তা নয়। এটা মাঝখানেই তবে বামদিকে এক-তৃতীয়াংশ প্রসারিত।
✬ মানুষের শরীরে গিরার পরিমাণ ১০০ টি.
✬ চোখের একটা পলক ফেলতে ০.৪ সেকেন্ড সময় লাগে।
✬ মাথায় প্রতিদিন প্রায় ১০০ টি চুল গজায়।
✬ সুস্থ্ দেহে রক্তের গতিবেগ ঘন্টায় ৭ মাইল।
✬ একজন মানুষের গড় ক্ষমতা ০.১৪৩ অশ্ব ক্ষমতা।
✬ স্বাভাবিক ভাবে বেঁচে থাকলে মানুষ সাধারণত ২,৫০,০০,০০০ বার কাঁদে।
✬ মেয়েদের চেয়ে ছেলেদের নখ দ্রুত বাড়ে।
✬ একজন মানুষের রক্তের পরিমাণ তার মোট ওজনের ১৩ ভাগের এক ভাগ।অর্থাৎ ৬৫ কেজি ওজন মানুষের রক্তের পরিমাণ হল ৫ কেজি।
✬ দেহে অক্সিজেন সরবরাহকারী লোহিত রক্ত কণিকার পরিমাণ ২৫০০কোটি এবং এরা ৪ মাস বাঁচে।
✬ রোগ প্রতিরোধকারী শ্বেত রক্ত কণিকার সংখ্যা ২৫০ কোটি এবং এরা মাত্র ১২ ঘন্টা বাঁচে।
✬ দেহের সব শিরাকে পাশাপাশি সাজালে দেড় একর জমির প্রয়োজন হবে।
✬ একজন মানুষের স্নায়ুতন্ত্র এত লম্বা যে তা দিয়ে পৃথিবীকে ৭বার পেঁচানো যাবে।
✬ কোন অনুভূতি স্নায়ুতন্ত্রেরমধ্য দিয়ে ঘন্টায় ২০০ মাইল বেগে প্রবাহিত হয়।
✬ দেহে ও মনে অনুভূতি আসলে তা মস্তিষ্কে পৌঁছতে ০.১ সেকেন্ড সময় লাগে।
✬ একজন শিশুর জন্মের সময় হাড় থাকে ৩৫০ টি।
✬ একজন মানুষ সারা জীবনে ৪০ হাজার লিটার মূত্র ত্যাগ করে।
✬ একজন মানুষের শরীরে চামড়ার পরিমাণ হচ্ছে ২০ বর্গফুট।
✬ একজন মানুষের চামড়ার ওপর রয়েছে ১ কোটি লোমকূপ।
✬ মানুষের শরীরে যে পরিমাণ চর্বি আছে তা দিয়ে ৭ টি বড় জাতের কেক তৈরি সম্ভব।
✬ মানুষের শরীরে ৬৫০ টি পেশী আছে। কোন কোন কাজে ২০০ টি পেশী সক্রিয় হয়। মুখমন্ডলে ৩০ টির বেশী পেশী আছে। হাসতে গেলে ১৫ টির বেশী পেশী সক্রিয় হয়।
✬ একস্থান থেকে শুরু করে সমগ্র শরীর ঘুরে ঐ স্থানে ফিরে আসতে একটি রক্ত কণিকা ১,০০,০০০ কিমি পথ অতিক্রম করে অর্থাৎ ২.৫বার পৃথিবী অতিক্রম করতে পারে।
✬ আমাদের মস্তিষ্ক প্রায় ১০,০০০ টি বিভিন্ন গন্ধ চিনতে ও মনে রাখতে পারে।
✬ মানবদেহে রক্তের পরিমাণ পুরুষের ৫.৫ লিটার, মহিলার ৪.৫ লিটার।
✬ রক্তে লোহিত কণিকা জীবিত থাকে ৪ মাস,
✬ রক্তে লোহিত ও শ্বেতকণিকার অনুপাত ৭০০:১। মাত্র ১ ফোঁটা রক্তে হয়েছে ১০০ মিলিয়ন লোহিতকণিকা।
✬ মানবদেহের স্বাভাবিক তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
✬ শরীরের মোট তাপের প্রায় ৮০ ভাগ বেরিয়ে আসে মাথা দিয়ে।
✬ দেহে প্রতিদিন চুল গজায় ১০০টি।
✬ দেহের দ্রুততম কোষ হচ্ছে শ্বেতকণিকা।
✬ মানবদেহের ক্রোমোজোম ২৩ জোড়া, অটোজোম ২২ জোড়া।
✬ মানবদেহের সবচেয়ে বড় অস্থিটির নাম উর্বাস্থি (উরুদেশে অবস্থান), ছোটটির নাম স্টেপিস। দেহের ৫টি আঙুলের অস্থির সংখ্যা ১৪টি।
✬ ✬ শরীরের অন্যান্য কোষের তুলনায়, মস্তিষ্কের কোষ বেচে থাকে দীর্ঘসময়।এদের মধ্যে কিছু বেচে থাকে মৃত্যুঅবধি !!

[ইন্টারনেট হতে সংগ্রহীত]

শেয়ার করতে ভুলবেন না।

Like us on facebook http://facebook.com/jobs24.info

Leave a Reply

Your email address will not be published.